এফএও’র পরবর্তী আঞ্চলিক সম্মেলন বাংলাদেশে

Mosleh Mosleh

uddin

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৪, ২০২০

সীমান্ত বাংলা ডেস্ক : খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) পরবর্তী এশিয়া-প্যাসিফিক আঞ্চলিক সম্মেলনের আয়োজন করবে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের এই সংস্থাটির ৩৬তম সম্মেলন ২০২২ সালে অনুষ্ঠিত হবে। স্বাধীনতা অর্জনের দ্বিতীয় বছর (এফএও) যোগদানের পর প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে এই সম্মান পেয়েছে।

শুক্রবার রাজধানীর একটি হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক।কৃষিমন্ত্রী জানান, ১ থেকে ৪ সেপ্টেম্বর ভুটানে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত ৩৫তম এশিয়া-প্যাসিফিক আঞ্চলিক সম্মেলনে সদস্যভুক্ত দেশগুলো পরের সম্মেলনটি বাংলাদেশে আয়োজনের বিষয়ে সম্মতি দেয়।

এই সম্মেলন আয়োজনের বিষয়ে বাংলাদেশের প্রস্তাবের ওপর চীন, ভারত, ভুটান, ইরান, তিমুর, থাইল্যান্ড, ফিলিপিন্স ও কম্বোডিয়া সরাসরি সমর্থন দিয়েছে এবং সদস্যভুক্ত অন্যান্য দেশ সম্মতি দিয়েছে।কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘১৯৭৩ সালে এফএও-তে যোগ দেয়া বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো ২০২২ সালে ৩৬তম এশিয়া-প্যাসিফিক সম্মেলন আয়োজন করবে।’

জাতিসংঘের এই সংস্থাটির সম্মেলন এর আগে চারবার ভারত, তিনবার করে ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া এবং থাইল্যান্ড; চীন কোরিয়া এবং ভিয়েতনাম দুবার; ভুটান, মিয়ানমার, নেপাল, পাকিস্তান এবং শ্রীলংকা প্রত্যেকে একবার করে এ সম্মেলনের আয়োজন করেছে।

কোভিড-১৯ মহামারির কারণে এবার ভার্চুয়ালি এই সম্মেলন হলেও ২০২২ সালে করোনাভাইরাস থাকবে না বলে আশা করছেন কৃষিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আশা করছি, ভালোভাবেই আমরা এই সম্মেলনের আয়োজন করতে পারব।’

ঢাকায় ৩৬তম অধিবেশন এই অঞ্চলের দেশগুলোর অর্জন, সাফল্য ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন বিষয়ে মতবিনিময় ও পারস্পরিক সহযোগিতার নতুন দ্বার উন্মোচন করবে বলে আশা প্রকাশ করেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক।

ঢাকাটাইমস/০৪সেপ্টম্বর/এড‌মিন ইব‌নে যা‌য়েদ