মঙ্গলবার, ২৫ Jun ২০২৪, ০৩:১০ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
নরসিংদীতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত উল্লাপাড়ায় মাইক্রোবাস-অটোভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে অটোভ্যান চালক নি’হ’ত। নরসিংদীর রায়পুরায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘ’র্ষ, আহত ৪ ঘুমধুমে অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার নরসিংদীর রায়পুরায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ৪ সেন্টমা‌র্টিন দ্বীপ নি‌য়ে বাকযুদ্ধ – মেজর না‌সিরু‌দ্দিন(অব) পিএইচ‌ডি রা‌সেল ভাইপার সা‌পের কাম‌ড়ে আক্রান্ত কৃষক এখ‌নো সুস্থ  রাসেলস ভাইপার নিয়ে আতঙ্ক না ছড়িয়ে সচেতন হওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের এক ছাগল কিনেই বেরিয়ে এলো মতিউর-লাকী দম্পতির থলের বেড়াল ভারতকে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে মরিয়া টাইগাররা
সালাম কে জঙ্গিবাদের সাথে তুলনা করায় ঢাবি শিক্ষকের সমালোচনায় সরব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

সালাম কে জঙ্গিবাদের সাথে তুলনা করায় ঢাবি শিক্ষকের সমালোচনায় সরব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

সীমান্তবাংলা নিউজ ডেস্কঃ ধর্মীয় রেওয়াজ শুদ্ধভাবে সালাম দেয়া ও আল্লাহ হাফেজ বলাকে জঙ্গিবাদের চর্চা বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান।

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ডিবিসি নিউজের উপসংহার অনুষ্ঠানে “ধর্মের অপব্যাখ্যায় জঙ্গিবাদ” বিষয়ক আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

ধর্মীয় স্পর্ষকাতরতার বিষয় নিয়ে উনার এমন মন্তব্যের পর পরই অনুষ্টানের ভিডিও টি ফেসবুক সহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তড়িৎ গতিতে ভাইরাল হয়। সালাম ও আল্লাহ হাফেজ নিয়ে এমন মন্তব্য করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুরু হয় তীব্র সমালোচনা ও নিন্দার ঝড়।

মানবাধিকার কর্মী, সমাজ কর্মী ও বিতর্ক সংগঠক কামরুল হাসান তার ফেইসবুকে লিখেন, ‘ড. জিয়া রহমান সাহেব সালাম ও আল্লাহ হাফেজকে জঙ্গীবাদের শিক্ষা বলে রীতিমত ধৃষ্টতা দেখিয়েছেন। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই এবং তার শাস্তি দাবী করছি!

খায়রুল ইসলাম তার ফেসবুক প্রোফাইলে লিখেন, ‘একটা মানুষ চুড়ান্ত অজ্ঞ হলেই সালাম, আল্লাহ হাফেজ নিয়ে এমন মাতলামিমুলক কথাবার্তা বলতে পারে। ঢাবির মত গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় এ পাগলদের জায়গা দেয় কে?’

মোহাম্মদ তসলিম উদ্দিন লিখেন, ‘এরা শিক্ষিত হয়েছে ঠিকই, সুশিক্ষিত হতে পারেনি।’

এইচ এম আলাউদ্দিন লিখেন, ‘শুদ্ধ করে সালাম দেয়া, কথা শেষে আল্লাহ্ হাফেজ বলা জঙ্গিবাদের লক্ষণ – ঢাবি প্রফেসর জিয়া রহমান! জঙ্গীবাদের নামে ইসলাম ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত হানার দায়ে ওনাকে গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি।’

এটাকে অশনিসংকেত হিসেবে উল্লেখ করে মাসউদ উবায়দুল্লাহ লিখেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক হয়েও যখন এভাবে টেলিভিশনে এসে পাবলিকলি ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে, ধর্মের অপব্যাখ্যা করছে। তখন বুঝতে হবে এটা জাতির জন্য বড় অশনিসংকেত।’

মোফাজ্জেল হোসাইন লিখেন, ‘দেশের সেরা বিদ্যাপীঠের প্রতিনিধিরা এমন কথা বলে, কারো সাথে তুলনা করে ঘৃণা করা মুশকিল। লজ্জা শব্দটা ব্যবহার করলে শব্দটা লজ্জা পাবে, প্রতিবাদের/ঘৃণা করার ভাষা নেই। দুনিয়ার সামান্য মোহের জন্য সুশিক্ষার ইজ্জত লুন্ঠন করে এরা। শুদ্ধভাবে সালাম দিয়ে কাউকে দোয়া করলে যদি জঙ্গির লক্ষণ হয়। তবে আল্লাহর গজব ছাড়া তার জন্য হেদায়াত শব্দও ব্যবহার বেঈমানি হবে।

( সীমান্তবাংলা/ শা ম/ ২২ অক্টোবর ২০২০)

পোষ্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© কপিরাইট ২০১০ - ২০২৪ সীমান্ত বাংলা >> এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ

Design & Developed by Ecare Solutions