বৃহস্পতি. জুলাই ১৮, ২০১৯

শান্তি চুক্তি- উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে পার্বত্যাঞ্চল-বীর বাহাদুর

বান্দরবান প্রতিবেদক © শান্তি চুক্তির সুফল হিসেবে পার্বত্য অঞ্চল আজ উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে। ১৯৯৭ সালের ২রা ডিসেম্বর আওয়ামীলীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আলাপ আলোচনার মাধ্যমে শান্তি চুক্তি  করেছিলেন বলেই আজ পাহাড়ের মানুষ শান্তিপূর্ণ ভাবে তাদের জীবন যাত্রা অতিবাহিত করতে পারছে। সেইদিন আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা শান্তিচুক্তি করেছিলেন বলেই আজ সারাদেশের সাথে তালে তাল মিলিয়ে পার্বত্য অঞ্চলের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড পর্যায়ের জনসাধারণের কাছে আজ উন্নয়ন কর্মকান্ড দৃশ্যমান।

মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) সকালে গণপূর্ত বিভাগ বান্দরবানের ৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে বান্দরবান সদর হাসপাতালকে ১০০ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যায় রুপান্তরের লক্ষে ৮ তলা বিশিষ্ট হাসপাতাল ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন কালে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, সারাদেশের সাথে পার্বত্য অঞ্চলের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই।
একশ শয্যার বান্দরবান সদর হাসপাতালকে আড়াইশ শয্যায় উন্নীত করা হচ্ছে। প্রায় ৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সরকারের গণপূর্ত বিভাগ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। মঙ্গলবার সকালে পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ২৫০ শয্যার হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন।

বান্দরবান সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডাঃ ক্য থোয়াই প্রু প্রিন্স এর সঞ্চালনায় এসময় তার সাথে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার, সিভিল সার্জন ডা. অং সুই প্রু মারমা, গণপূর্ত বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মনিরুল ইসলাম, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য কাজল কান্তি দাশ, পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ক্যসা প্রু, সদস্য লক্ষীপদ দাশ, সদস্য মোজাম্মেল হক বাহাদুর, সদস্য ¤্রাসা খেয়াং, সদস্য ফিলিপ ত্রিপুরা, সদস্য তিংতিং ম্যা মারমা, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল কুদ্দুছ, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি অমল কান্তি দাশ, ৩নং ওয়ার্ড পৌর কাউন্সিলর অজিত কান্তি দাশ, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মাজেদুল ইসলামসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
১৯৮৯ সালে ৫০ শয্যার বান্দরবান সদর হাসপাতাল ২০০১ সালে এসে একশ শয্যায় উন্নীত হয়। বান্দরবান পার্বত্য জেলার সবচেয়ে বড় এই হাসপাতালটি এখন আড়াইশ শয্যায় উন্নীত হচ্ছে। দুর্গম ৭ উপজেলার মানুষের উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে এই হাসপাতালটি।

এ উপলক্ষে হাসপাতাল চত্ত্বরে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি বলেন, চিকিৎসা ব্যবস্থায় এ সরকারের আমলে ব্যাপক উন্নতি সাধিত হয়েছে। বান্দরবানে নতুন নতুন কমিউনিটি ক্লিনিক ছাড়াও নার্সিং ট্রেনিং ইনস্টিটিউট হচ্ছে। জেলা হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গুলোও আধুনিকায়ন করা হচ্ছে। দুর্গম এলাকার রোগীদের জন্য নতুন এ্যাম্বুলেন্স এর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.