শনিবার, ২২ Jun ২০২৪, ০৩:১২ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
সেন্টমা‌র্টিন দ্বীপ নি‌য়ে বাকযুদ্ধ – মেজর না‌সিরু‌দ্দিন(অব) পিএইচ‌ডি রা‌সেল ভাইপার সা‌পের কাম‌ড়ে আক্রান্ত কৃষক এখ‌নো সুস্থ  রাসেলস ভাইপার নিয়ে আতঙ্ক না ছড়িয়ে সচেতন হওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের এক ছাগল কিনেই বেরিয়ে এলো মতিউর-লাকী দম্পতির থলের বেড়াল ভারতকে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে মরিয়া টাইগাররা প্রধানমন্ত্রী দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে নয়াদিল্লী পৌঁছেছেন মোটরবাইক ও ইজিবাইকের কার‌ণে সা‌দে‌শে সড়ক দুর্ঘটনা বাড়‌ছে- সেতুমন্ত্রী ওবাইদুল কা‌দের  ওমা‌নে খুল‌ছে বাংলা‌দে‌শের তৃতীয় বৃহত্তম শ্রমবাজার এলাকাজুড়ে আতঙ্ক, মানিকগঞ্জে লোকালয়ে ঢুকেছে রাসেল ভাইপার উত্তর পুর্বাঞ্চলীয় রা‌জ্যের স‌ঙ্গে অন‌্যান‌্য রাজ‌্যগু‌লোকে সংযুক্ত কর‌তে বাংলা‌দে‌শের উপর‌দি‌য়ে বিকল্প রেলপথ তৈ‌রি কর‌তে যা‌চ্ছে ভারত সরকার 
লাশের সাথে বিকৃত যৌনাচার || ডোম মুন্না ভক্ত গ্রেফতার

লাশের সাথে বিকৃত যৌনাচার || ডোম মুন্না ভক্ত গ্রেফতার

সীমান্তবাংলা নিউজ ডেস্কঃ এমন বিভৎস নোংরা কাহিনী প্রাচীন সভ্যতাকেও হার মানায়। প্রাচীন মিশরের ইতিহাসে মেলে এমন বিভৎসতার কথা। সমসাময়িক বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে বিকৃত রুচির নানা ব্যক্তি পুলিশের হাতে ধরা পড়ার পর সামনে আসে নেক্রোফিলিয়া বা মৃতদেহের সাথে যৌন সম্পর্কের বিষয়টি। যাকে চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় প্যারাফিলিয়া বা বিকৃত যৌনাচার। হলিউড, বলিউডসহ নানা দেশে গত শতক থেকেই নেক্রোফিলিয়া নিয়ে সিনেমাও হয়েছে বেশ কয়েকটি।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি গত বছরের মার্চ থেকে এ বছরের আগস্ট পর্যন্ত রাজধানীর মিরপুর ও কাফরুলসহ কিছু এলাকার অপমৃত্যু হওয়া কম বয়সী কিশোরী ও তরুণীদের শরীরে একই রকম বীর্যের নমুনা পায়। প্রথমে সিরিয়াল কিলার বিষয়টি মাথায় আসলেও পরে দেখা যায়, ২০ বছরের কম এবং যারা আত্মহত্যা বা দুর্ঘটনা ছাড়া মারা গেছেন তাদের সাথেই ডিএনএ স্যাম্পল মিলছে নাম না জানা এক ব্যক্তির। অনুসন্ধানে মেলে মারা যাবার পরও বিকৃত যৌনাচারের শিকার হয়েছিলেন অন্তত ৫ থেকে ৬ জন। এই বর্বরতার সাথে জড়িত থাকার দায়ে গ্রেপ্তার করা হয় সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গের ডোম মুন্না ভক্তকে।

গত চার বছর ধরে মর্গে কাজ করে আসছে মুন্না। কোনো বাসস্থান না থাকায় দিন-রাত সবসময়ই থাকতো মর্গে। এমনকি মর্গের ভেতরে মৃতদেহের সাথে ছবি তুলে ফেসবুকেও দেয় সে। ১৯ নভেম্বর শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা দায়ের হয় এ বিষয়ে।

দেশে প্রথমবারের মতো এমন বিষয় সামনে আসার পর আরো সতর্কতা বাড়ানো হচ্ছে মর্গগুলোতে।
মনোরোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, আত্মবিশ্বাসের ঘাটতি থেকেই এমন বিকৃত মানসিকতা তৈরি হয়। শাস্তির পাশাপাশি কাউন্সেলিং করে জানা দরকার বিকৃত এ মানসিকতার কারণ।

সিআইডি বলছে, বিভৎস এ বিষয় নিয়ে আরো গভীরভাবে তদন্ত করবে সংস্থাটি।

( সুত্রঃ চ্যানেল ২৪/ ২২ নভেম্বর ২০২০)

পোষ্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© কপিরাইট ২০১০ - ২০২৪ সীমান্ত বাংলা >> এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ

Design & Developed by Ecare Solutions