শনিবার, ২২ Jun ২০২৪, ০২:৪৫ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
সেন্টমা‌র্টিন দ্বীপ নি‌য়ে বাকযুদ্ধ – মেজর না‌সিরু‌দ্দিন(অব) পিএইচ‌ডি রা‌সেল ভাইপার সা‌পের কাম‌ড়ে আক্রান্ত কৃষক এখ‌নো সুস্থ  রাসেলস ভাইপার নিয়ে আতঙ্ক না ছড়িয়ে সচেতন হওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের এক ছাগল কিনেই বেরিয়ে এলো মতিউর-লাকী দম্পতির থলের বেড়াল ভারতকে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে মরিয়া টাইগাররা প্রধানমন্ত্রী দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে নয়াদিল্লী পৌঁছেছেন মোটরবাইক ও ইজিবাইকের কার‌ণে সা‌দে‌শে সড়ক দুর্ঘটনা বাড়‌ছে- সেতুমন্ত্রী ওবাইদুল কা‌দের  ওমা‌নে খুল‌ছে বাংলা‌দে‌শের তৃতীয় বৃহত্তম শ্রমবাজার এলাকাজুড়ে আতঙ্ক, মানিকগঞ্জে লোকালয়ে ঢুকেছে রাসেল ভাইপার উত্তর পুর্বাঞ্চলীয় রা‌জ্যের স‌ঙ্গে অন‌্যান‌্য রাজ‌্যগু‌লোকে সংযুক্ত কর‌তে বাংলা‌দে‌শের উপর‌দি‌য়ে বিকল্প রেলপথ তৈ‌রি কর‌তে যা‌চ্ছে ভারত সরকার 
ফ্রান্সে দ্বিতীয় দফায় করোনা সংক্রমনের রেকর্ড, লকডাউন ঘোষনা

ফ্রান্সে দ্বিতীয় দফায় করোনা সংক্রমনের রেকর্ড, লকডাউন ঘোষনা

সীমান্তবাংলা নিউজ ডেস্কঃ মহামারী করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় দফায় সংক্রমনে ফ্রান্সে একদিনে সর্বোচ্চ রেকর্ড করেছে। ভাইরাসটির কারণে দেশটিতে গত আটদিনে হাসপাতালে ভর্তি গুরুতর রোগীর সংখ্যাও বেড়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ফ্রান্সে গতকাল সোমবার ২৪ ঘণ্টায় ৫২ হাজার ৫১৮ জনের দেহে ভাইরাসটির উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ সময় ৪১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৪ লাখ ৬৬ হাজার ৪৩৩ জনের দেহে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। মোট মৃত্যু হয়েছে ৩৭ হাজার ৪৩৫ জনের।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, ১২ দিন আগেও ফ্রান্সে একদিনে ২৫ হাজার মানুষের দেহে ভাইরাসটির অস্তিত্ব শনাক্ত হয়েছে। কিন্তু এই অল্প সময়ের মধ্যে সেই সংখ্যা দ্বিগুণ হওয়ায় চিন্তার ফেলে দিয়েছে দেশটির নীতিনির্ধারকদের । হাসপাতালগুলোতেও বাড়তে শুরু করেছে গুরুতর রোগীর সংখ্যা। বর্তমানে ফ্রান্সের বিভিন্ন হাসপাতালের আইসিইউ-তে ৩ হাজার ৭৩০ জন করোনা রোগী ভর্তি আছেন। যা গত ৪ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ।

দ্বিতীয় দফায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ার কারণে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রো পুরো নভেম্বর মাস জাতীয় লকডাউন ঘোষণা করেছেন। গত শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া নতুন পদক্ষেপ সম্পর্কে তিনি বলেছেন, লোকদের কেবল প্রয়োজনীয় কাজ বা চিকিত্সার কারণে বাড়ির বাইরে যেতে দেওয়া হবে।

প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ বলেছেন, রেস্তোঁরা এবং বারের মতো অপ্রয়োজনীয় সকল ধরণের ব্যবসা বন্ধ থাকবে। তবে স্কুল এবং কারখানাগুলো উন্মুক্ত থাকবে। এছাড়া মার্চ মাসের প্রাথমিক লকডাউনে যেমন প্রয়োজন ছিল তেমনি লোকদের বাড়ির বাইরে যাওয়ার জন্য একটি ফর্ম পূরণ করে বাইরে যেতে হবে।

( সীমান্তবাংলা/ শা ম/ ৩ নভেম্বর ২০২০)

পোষ্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© কপিরাইট ২০১০ - ২০২৪ সীমান্ত বাংলা >> এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ

Design & Developed by Ecare Solutions