মঙ্গলবার, ২৫ Jun ২০২৪, ০১:৫৩ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
নরসিংদীতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত উল্লাপাড়ায় মাইক্রোবাস-অটোভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে অটোভ্যান চালক নি’হ’ত। নরসিংদীর রায়পুরায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘ’র্ষ, আহত ৪ ঘুমধুমে অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার নরসিংদীর রায়পুরায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ৪ সেন্টমা‌র্টিন দ্বীপ নি‌য়ে বাকযুদ্ধ – মেজর না‌সিরু‌দ্দিন(অব) পিএইচ‌ডি রা‌সেল ভাইপার সা‌পের কাম‌ড়ে আক্রান্ত কৃষক এখ‌নো সুস্থ  রাসেলস ভাইপার নিয়ে আতঙ্ক না ছড়িয়ে সচেতন হওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের এক ছাগল কিনেই বেরিয়ে এলো মতিউর-লাকী দম্পতির থলের বেড়াল ভারতকে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে মরিয়া টাইগাররা
তৃতীয় শ্রেণীর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ে দুর্গার ছবি

তৃতীয় শ্রেণীর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ে দুর্গার ছবি

 

  • ছাপাখানার ভুল বলছে এনসিটিবি
  • কক্সবাজার জেলার ছাত্র/ ছাত্রীদের মাঝে ৩য় শ্রেণীর কোন ধর্ম বই বিতরণ করা হয়নি। 

বছরের প্রথমদিনে উৎসবমূখর পরিবেশে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেয়া হয় নতুন বই। তবে তৃতীয় শ্রেণির ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইয়ে ঘটেছে কলঙ্কজনক ঘটনা। মুসলমান শিক্ষার্থীদের জন্য ছাপানো বেশকিছু বইয়ে পাওয়া গেছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দেবী দূর্গার ছবি। সাতক্ষীরার দুটি উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ও ঠাকুরগাঁওয়ের কয়েকটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এসব বই পাওয়ার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অভিভাবকরা। ঘটনা আচ করতে পেরে একদিন পরই শিক্ষকদের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বইগুলো ফিরিয়ে নিয়েছে সংশ্লিষ্ট উপজেলার শিক্ষা কর্মকর্তারা। তবে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি)র চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. ফরহাদুল ইসলাম জানিয়েছেন, এটি ছাপাখানার ভুল। তিনি জানান,বিষয়টি খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে ।

 জানা যায়, গত ১ জানুয়ারি উৎসবের মাধ্যমে সারাদেশে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেয়া হয় নতুন বই। নতুন বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা ফিরে যায় বাড়িতে। এর মধ্যে সাতক্ষীরা জেলার কালীগঞ্জ ও শ্যামনগর উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ঠাকুরগাঁও জেলার কয়েকটি বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীর হাতে যে ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বই তুলে দেয়া হয়, সেগুলোর পেছনের মলাটের ভেতরের পৃষ্ঠায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দেবী দূর্গার ছবি ছাপানো ছিলো । বিষয়টি চোখে পড়ার পর দ্রুতই অভিভাবক ও সচেতন ব্যক্তিরা সমালোচনা মুখর হয়ে উঠেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বইটির ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করেন অনেকে। এটিকে কেউ কেউ ইচ্ছাকৃত, আবার অনেকে অনিচ্ছাকৃত ভুল বলে দাবি করেন। বিষয়টি জানার পর সাতক্ষীরা ও ঠাকুরগাঁওয়ের সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইটি ফেরত নেয় শিক্ষকরা। যারা স্কুলে আসেননি তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়েও ফেরত আনা হয় এসব বই।

শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বই ফেরত নেয়ার পর সাতক্ষীরা সদরের টাউন সুলতানপুর সরকারি বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় একটি কক্ষে স্তূপ করে রাখা হয় তৃতীয় শ্রেণির ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বইগুলো। একই চিত্র রয়েছে সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন সরকারি স্কুলগুলোতে। স্কুলের একাধিক কর্মচারী জানান, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেওয়া বইগুলো জেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জমা দিয়ে যাচ্ছেন। যতগুলো সরকারি বিদ্যালয়ে এই বই গিয়েছিলো তা ইতোমধ্যেই ফেরত নেয়া সম্পন্ন হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হোসনে ইয়াসমিন করিমি জানান, এটা তার পক্ষে বলা সম্ভব নয়। তবে, বইটি ফেরত নিতে জেলার সব উপজেলায় আলাদা আলাদাভাবে কাজ চলছে। ইতোমধ্যে তা সম্পন্ন হয়েছে বলা যায়। এছাড়া, দ্রুত শিক্ষার্থীদের হাতে পুনরায় বই পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে। স্থানীয় প্রশাসন বলছে, ত্রুটি পাওয়ায় বইটি ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে। সংশোধনের পর তা আবারো বিতরণ করা হবে।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীম ভূইয়া বলেন, প্রাথমিকভাবে ৫-১০টি স্কুলে এ ধরনের ভুল বই পাওয়ার খবর জেনেছি। এর পরপরই আমরা সেগুলো তুলে এনেছি। তবে বইয়ের সংখ্যা কত তা তাৎক্ষণিকভাবে বলতে পারছি না।

এদিকে ঠাকুরগাঁওয়ের আমানউল্লাহ আমান নামে একজন অভিভাবক ভুলে ছাপা বইটির ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে শেয়ার করে দ্রুত সংশোধনী দিতে অনুরোধ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, তৃতীয় শ্রেণির বইটিতে এমন ভুল দেখে খোঁজ নিলাম। দেখলাম আমাদের আশপাশের দুটি স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির ইসলাম শিক্ষা বইয়ে একই ভুল। অন্য এলাকার খবর আমি জানি না।

এ বিষয়ে এনসিটিবি চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. ফরহাদুল ইসলাম বলেন, এটা ছাপাখানার ভুল। ভুলটা হলো- ইসলাম শিক্ষা বইয়ের উল্টো পাশে হিন্দু ধর্ম শিক্ষা বইয়ের ইংরেজি ভার্সনের মলাট রয়ে গেছে। এটা জানার পরপরই আমরা বই তুলে নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছি। শুনেছি ৪০টি বইয়ে এমন ভুল হয়েছে। সাতক্ষীরার একটি স্কুলে এমন ভুল ছাপা বই পাওয়া গেছে। নতুন করে বই ছাপিয়ে দ্রুত শিক্ষার্থীদের বইটি দেওয়া হবে। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে এনসিটিবির বিতরণ শাখার এক কর্মকর্তা জানান, এখন ওয়েব মেশিনে বই ছাপা হয়। যদি ভুল হয়ে থাকে, তাহলে কয়েক হাজার বইয়ে একই রকম ভুল হওয়ার কথা। কিন্তু অল্প কিছু বইয়ে এ ধরনের ভুল হওয়ায় সন্দেহ বাড়ছে। এটা প্রেসের ভুল নাকি অন্য কোনো কিছু আছে, সেটা তদন্ত করা প্রয়োজন।

পোষ্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© কপিরাইট ২০১০ - ২০২৪ সীমান্ত বাংলা >> এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ

Design & Developed by Ecare Solutions