জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান

SIMANTO SIMANTO

BANGLA

প্রকাশিত: অক্টোবর ২২, ২০২২

বিশেষ প্রতিবেদক 

চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান এটিএম পেয়ারুল ইসলাম বলেছেন, দেশের কোনো না কোনো স্থানে প্রতিদিনই সড়ক দুর্ঘটনা সংঘটিত হচ্ছে। হতাহত হচ্ছে মানুষ। সড়কপথে দুর্ঘটনা কমিয়ে আনতে গণপরিবহনের যাত্রী, পথচারী এবং চালকসহ সবাইকে সতর্ক হতে হবে। আর সবাই সতর্ক হলে দুর্ঘটনা অনেকাংশেই রোধ করা সম্ভব।
তিনি আরো বলেন, শুধু আইন করে সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব নয়। নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন ও সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোসহ দুর্ঘটনা রোধে জনসচেতনতা বেশি প্রয়োজন। সবাই আইন মেনে চললেই নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন সম্ভব হবে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা সড়ক দুর্ঘটনা অনেকাংশে এড়ানো সম্ভব। আসুন আমরা আইন মেনে সড়কে চলি, নিরাপদে ঘরে ফিরি এবং আমরা নিজ দায়িত্বে সচেতন হয়ে নিজে সুস্থ থাকি, অন্যকে সুস্থ রাখি।
২২ অক্টোবর শনিবার বিকালে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উদযাপন উপলক্ষে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের আলহাজ্ব সুলতান আহম্মেদ মিলনায়তনে “আইন মেনে সড়কে চলি, নিরাপদে ঘরে ফিরি” প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির উদ্যোগে সভাপতি এস এম আবু তৈয়বের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শফিক আহমেদ সাজীবের স্বাগত বক্তব্যে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও শিক্ষার্থীদের উপহার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সভাপতির বক্তব্যে এসএম আবু তৈয়ব বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা রোধে আগের তুলনায় মানুষ অনেক সচেতন হচ্ছে। আমরা আশা করি ভবিষ্যতে সবার প্রচেষ্টায় এটি প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে। দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ও সুশৃঙ্খল সড়কের জন্য সকলের সচেতন হওয়া জরুরী। সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে দরকার সাধারণ পথচারী থেকে উচ্চ পর্যায়ে সবার মানসিকতার পরিবর্তন।
সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ এনামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও শিক্ষার্থীদের উপহার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, ডায়মন্ড সিমেন্ট লিমিটেডের পরিচালক লায়ন হাকিম আলী, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবদুল মান্নান, বাংলাদেশ জাতীয় সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন (সিলেট-চট্টগ্রাম) পুর্বাঞ্চল কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেন।
উপস্থিত ছিলেন, সহ-সাধারণ সম্পাদক আরশাদ উর রহমান, শহীদুল ইসলাম, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. টিপু শীল জয়দেব, সমাজ কল্যাণ ও ক্রীড়া সম্পাদক রেজাউল করিম রিটন, যুব বিষয়ক সম্পাদক সনত তালুকদার, মুহাম্মদ আহসান হাবিবুল আলম, সিরাজুল মনির মানিক, ডাঃ অঞ্জন কুমার দাশ, মোহাম্মদ ইব্রাহিম।
অনুষ্ঠান শেষে চট্টগ্রাম উত্তর ও দক্ষিণ জেলা এবং মহানগর এলাকায় তিন মাসব্যাপী পর্যায়ক্রমে ২১৩টি স্কুলে অনুষ্ঠিত শিক্ষার্থী সমাবেশে কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে বাঁচাই করা শিক্ষার্থী নগরীর ডাঃ খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সানজা তাবাসসুম সুহানা, শাহ ওয়ালী উল্লাহ ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী তাহসিমুল মুনতাসীর আদিত্য, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মোঃ নাইফ কাউছার ত্বাহা, সাউথ চট্টগ্রাম গ্রামার স্কুলের শিক্ষার্থী তানজিনা আকতার, ফারহানা আফরিন ইতু, জান্নাতুল মাওয়া আফরোজা, ছালমা আকতার তায়বা, চট্টগ্রাম উত্তর জেলার হাটহাজারীর কাটির হাট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাফওয়ান হোসেন, সৈয়দ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ এর হাতে উপহার সামগ্রী তুলে দেন অতিথিগণ।