কক্সবাজার জেলায় আওয়ামিলীগ রাজনীতিতে অনন্য দৃষ্টান্ত করলেন সিআইপি আঃশুক্কুর

SIMANTO SIMANTO

BANGLA

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৭, ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধি :

বাংলাদেশের বর্তমান স্বার্থবাদী রাজনীতির প্রেক্ষাপটে
টেকনাফ পৌরসভার নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সিআইপি আব্দুস শুক্কুর জনপ্রিয়তায় শীর্ষে থেকেও দলীয় আনুগত্য স্বীকার করে নিজের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে দলীয় প্রার্থীকে সমর্থন করে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। বলতে গেলে টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে একপ্রকার বিজয় সুনিশ্চিত ছিল সিআইপি আব্দুস শুক্কুরের।

গত একটি বছর টেকনাফ পৌরসভার অলিতে-গলিতে সাধারণ মানুষের মুখে একটি নাম-ই উচ্চারণ হচ্ছিল সেই নামটি হল উখিয়া-টেকনাফের ভোট রাজনীতির কিংবদন্তী মরহুম আলহাজ্ব এজাহার মিয়া কোম্পানির সুযোগ্য সন্তান সিআইপি আব্দুস শুক্কুর। তিনি নির্বাচন করবেন এমন কথা প্রচার হওয়ার পর থেকে টেকনাফ পৌর এলাকার যুবক, শ্রমিকসহ সকল পেশা শ্রেণির নাগরিকদের মধ্যে প্রবল উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়।

টেকনাফ পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ ভোটারদের মাঝে এক অভূতপূর্ব সাড়া পড়ে যায়। সবার মূখে মূখে একটিই নাম প্রচারিত হচ্ছিল সেটা হল সিআইপি আব্দুস শুক্কুর।

এর কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে দেখা যায়, সাধারণ মানুষের মুখে ওর সামাজিক কর্মকাণ্ডের ভূয়সী প্রশংসা শোনা যায়। মরহুম আলহাজ্ব এজহার মিয়া কোম্পানির সুযোগ্য সন্তান হিসেবে বাবার যোগ্য উত্তরাধিকার হিসাবে নিজেকে সাধারণ মানুষের মাঝে তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন। তিনি টেকনাফ পৌরবাসীর মনে খুবই অল্প সময়ে স্থান দখল করে নেয়। জনপ্রতিনিধী না হওয়া সত্বেও সামাজিক কর্মকান্ডে সাধারণ মানুষদের সুখে-দুঃখে নিজে উপস্থিত থেকে সাধারণ মানুষের সেবা করে গেছেন এবং জনগণের নানা ভোগান্তি দূর করতে একান্ত সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে নিজেকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছেন। এক কথায় বলতে গেলে টেকনাফ পৌর এলাকায় সর্বোচ্চ জনপ্রিয় নেতা হিসাবে পরিচিতি লাভ করেন সিআইপি আব্দুস শুক্কুর।

নিজের এমন জনপ্রিয়তা থাকা সত্বেও দলের সিন্ধান্তের প্রতি অবিচল ছিলেন তিনি। যা বর্তমান রাজনীতির যুগে খুবই বিরল ঘটনা । সবশেষে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সিন্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে নিজের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়ে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে সমর্থন জানিয়েছেন। এর ফলে কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের রাজনীতির নেতৃত্বের প্রতি দলীয় আনুগত্য স্বীকার করে জেলায় এক অনন্য নজির স্থাপন করেছেন ।

সীমান্তবাংলা/রম/০৭ ডিসেম্বর ২০২১