সোম. মার্চ ২৫, ২০১৯

কক্সবাজারে আশ্রিত রোহিঙ্গারা ভাসানচরে নয় ফিরে যেতে চায় মিয়ানমারে 

মোসলেহ উদ্দিন © কক্সবাজারের উখিয়ায় আশ্রিত লক্ষাধিক রোহিঙ্গাদের নোয়াখালী জেলার ভাসানচরে অস্থায়ীভাবে পুনর্বাসন করতে চায় বাংলাদেশ সরকার। এজন্য রোহিঙ্গারা যাতে সেখানে ভালভাবে বসবাস উপযোগী করে গড়ে তোলার জন্য নৌবাহিনী কাজ করছে। চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে বাজেটে ভাসানচর উন্নয়নের জন্য ৪১৩ কোটি ৭০লাখ টাকা বরাদ্ধ রাখা হয়েছে।

এই ক্ষেত্রে রোহিঙ্গাদের দাবী তাদেরকে ভাসানচরে না নিয়ে জাতীসংঘের সহায়তায় মিয়ানমারের রাখাইনে ফিরে যেতে উদ্যোগ গ্রহন করা হোক। তাদের নিজ ভুমি ফিরিয়ে দিয়ে বসবাস ককরতে পারে। কেননা সেখানে তাদের শ্রমে অর্জিত সহায় সম্পত্তি রয়েছে। কক্সবাজার ত্রান ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা বলেছেন, বিশাল রোহিঙ্গা জনগোষ্টি এক জায়গাতে বসবাস নিরাপদ নয়, তাই প্রাথমিকভাবে লক্ষাধিক রোহিঙ্গা ভাসানচরে পুনর্বাসন করা সরকারের সিদ্ধান্ত রয়েছে।

সুত্রমতে, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে আশ্রয় নিয়েছে প্রায় সাড়ে ১১লাখ রোহিঙ্গা বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গার মধ্যে ১লাখ রোহিঙ্গার জন্য ভাসানচরে একনেক ২হাজার ৩১২কোটি টাকা ব্যয় বরাদ্ধে অস্থায়ী আবাসন গড়ে তোলা হয়েছে।

প্রকল্পে ভাসানচরে ভাঙ্গন প্রতিরোধে বেড়িবাঁধ নির্মান সহ ১শত ২০টি গুচ্ছগ্রাম, ১৪শত ৪০টি ব্যারাক হাউজ এবং ১শত ২০টি আশ্রয় কেন্দ্র থাকছে।
পাশাপাশি সেখানে বসবাসকারী রোহিঙ্গাদের জন্য আয়ের উৎস হিসেবে ছোট দোকান, বিক্রয় কেন্দ্র, গরু মহিষ হাঁস মুরগী পালন, মাছ চাষ, কুঠির শিল্প সহ অনেক ধরনের অায়ের সুয়োগ থাকছে। গত শুক্রবার কুতুপালং এলাকায় ২০১২সালে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মাঝি নুরে আলম বলেন, নিজ মাতৃভুমি মিয়ানমার ত্যাগ করে এখানে আসার পর এখানে অনেকটা ভাল আছে। বাংলাদেশ সরকার ও জাতীসংঘের সহযোগিতায় প্রত্যাবাসন শুরু হলে তারা সহজে নিজ দেশে ফিরে যেতে সক্ষম হবে।
রোহিঙ্গা প্রত্যবাসন সংগ্রাম কমিটির প্রভাবশালী সদস্য আলহাজ মাহামুদুল হক চৌধুরী বলেন, রোহিঙ্গাদের স্বদেশে নাগরিক অধিকার নিয়ে ফিরানোর জন্য সরকার আন্তরিক। তাই ভাসানচরে স্থানান্তরের চেয়ে রোহিঙ্গাদের সার্বিক বিষয়ে নিয়ন্ত্রন, আইনশৃংখলা বাহিনী কূতৃক তদারকি বৃদ্ধি, তারা যাতে সহজে ছড়িয়ে ছিটিয়ে যেতে না পারে সে ব্যাপারে উদ্যোগ গ্রহন করা প্রয়োজন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.