শনিবার, ১৩ Jul ২০২৪, ০৬:১২ পূর্বাহ্ন

এক ছাগল কিনেই বেরিয়ে এলো মতিউর-লাকী দম্পতির থলের বেড়াল

এক ছাগল কিনেই বেরিয়ে এলো মতিউর-লাকী দম্পতির থলের বেড়াল

নরসিংদী প্রতিনিধি ■ সম্প্রতি ১৫ লাখ টাকায় রাজধানীর সাদেক এগ্রো থেকে একটি ছাগল কেনার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ছাগলটি কিনেছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তা মতিউর রহমান ও রায়পুরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লায়লা কানিজ লাকীর ছেলে মুশফিকুর রহমান ইফাত। সেই সঙ্গে সে আরও ৪টি গরুও কিনেছেন ৪৫ লাখ টাকায়। সব মিলিয়ে অর্ধকোটিও বেশি টাকার কোরবানি কিনেছেন ইফাত।

ইফাত গত বছরও কোরবানিতে ৬০ লাখ টাকার পশু ক্রয় করেছিলেন বলে নিশ্চিত করেছেন তাদের কাছে বিক্রি করা এক বিক্রেতা। এতো টাকায় কোরবানি পশু কিনলেও এর আগে আলোচনায় আসেননি তিনি। কিন্তু ১৫ লাখ টাকায় রাজধানীর সাদেক এগ্রো থেকে একটি ছাগল কিনে ভাইরাল হয়েছেন।
ছাগলটি ক্রয়ের পর প্রথমে ধানমন্ডির ৮ নাম্বার সড়কের ইমপেরিয়াল সুলতানা ভবনের নিচ তলায় রাখেন। সেখানে সাক্ষাৎকারের জন্য গেলে ছাগলটিকে সরিয়ে নেয়া হয়। পাশাপাশি ইফাতের ফেইসবুক প্রোফাইল লক করে বন্ধ করে দেওয়া হয় তার ব্যবহৃত ফোন নাম্বারটি।
মতিউর রহমান একজন জাতীয় রাজস্ব কর্মকর্তা, বর্তমানে কাস্টমস আপীলাত ট্রাইব্যুনালের প্রেসিডেন্ট। বেতন এক লাখ টাকার নীচে। শুধুমাত্র বসুন্ধরাতেই মতিউর, তার স্ত্রী সন্তান, আত্মীয়দের নামে এবং বেনামে ৪০ টি প্লট রয়েছে। নরসিংদীর রায়পুরা মরজালে ৪০ বিঘা জমির উপরে গড়ে তুলেছেন আলিসান রিসোর্ট ওয়ান্ডার পার্ক। গাজীপুরে মতিউরের জুতার ফ্যাক্টরি, জুতার ফ্যক্টরিতে সে নিজেই চেয়ারম্যান। গুলশান-২ এ শাহবুদ্দিন পার্কের উল্টোদিকে আনোয়ার ল্যান্ডমার্কের একটি ভবণে চারটি ফ্ল্যাট আছে। ফ্ল্যাটগুলোর মূল্য প্রতিটি ৫ কোটি টাকার নীচে নয়। গুলশানের শান্তা প্রোপার্টিজের একটি ভবনে আটটি ফ্ল্যাট। মতিউরের পুত্র বধূও ডেলিভারির হয়েছে আমেরিকান হাসপাতালে। সেখানে ডেলিভারী বাবদ ১৫ লাখ পরিশোধ করা হয়েছে। মতিউরের একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট আইডেন্টিফাই করেছে গোয়েন্দারা। সেখানে ১১৭ কোটি টাকা জমা রয়েছে বলে তথ্য দিয়েছে এছাড়া সিঙ্গাপুর, মালেয়শিয়া, দুবাই ও আমেরিকায় বিপুল পরিমাণ সম্পদ রয়েছে মতিউরের। মতিউর রহমান তার নিজের স্ত্রী লায়লা কানিজ লাকীকে বিপুল পরিমান টাকা খরচ করে বানিয়েছিলেন বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। স্ত্রীর নামেও রয়েছে হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পদ। আসন্ন রায়পুরা উপজেলা নির্বাচনেও তিনি একজন প্রার্থী।

রায়পুরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লায়লা কানিজ লাকি ও তার স্বামী মতিউর রহমানের আলাদিনের চেরাগকে হার মানানো আয়ের উৎস জানতে চায় সাধারণ মানুষ। এব্যাপারে কথা বলতে লায়লা কানিজ লাকি’র ব্যবহৃত মুঠোফোনে কল দিলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

পোষ্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© কপিরাইট ২০১০ - ২০২৪ সীমান্ত বাংলা >> এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ

Design & Developed by Ecare Solutions